হবিগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ হবিগঞ্জ সদর উপজেলার কালনী গ্রামে পূর্ব বিরোধের জের ধরে ইউপি মেম্বার শাস্তু মিয়াকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টা প্রতিপক্ষের লোকজন। আশংকা জনক অবস্থায় তাকে সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সেখানে তিনি মুত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। আজ বুধবার দুপরে এ ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, হবিগঞ্জ সদর উপজেলার রিচি ইউনিয়নের কালনী গ্রামের বাসিন্দা ইউপি মেম্বার শাস্তু মিয়ার সাথে একই গ্রামের আছকির মিয়া ও ফরিদ মিয়া গংদের সাথে দীর্ঘদিন পূর্ববিরোধ চলে আসছিল।

এরই জের ধরে আছকির মিয়া ও ফরিদ মিয়া শাস্তু মিয়া মেম্বারকে হত্যা পরিকল্পনা করে। আজ সকালে সকালে মেম্বার শাস্তু মিয়া পাশের নোয়াবাদ গ্রামে একটি শালিস বিচারে যাওয়ার সময় রাস্তায় পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা আছকির, ফরিদ মিয়া ও লোকজন তার উপর দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়।

এ সময় সাথে থাকা তার চাচা গিয়াস উদ্দিন (৭৫) এগিয়ে এলে তার উপরও হামলা চালায় । আছকির মিয়া গংরা কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে ইউপি সদস্য শাস্তু মিয়াকে। এ সময় শাস্তু মিয়াকে বাঁচাতে তার ছোট নার্গিস আক্তার এগিয়ে আসলেও তার উপর হামলা চালায় আছকির মিয়ার লোকজন।

পরে এলাকার লোকজন আহত অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্মরত চিকিৎসক শাস্তু মিয়াকে আশংকা জনক অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল হাসপাতালে রেফার করেন। সেখানে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়ার পরও ইউপি সদস্য শাস্তু মিয়ার শংকা কাটছে না। তার অবস্থা সংকাটাপন্ন বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

ইউপি সদস্য শাস্তু মিয়ার চাচাত ভাই ছালেক মিয়া জানান, একই গ্রামের আছকির ও ফরিদ মিয়া গংদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে তাদের পরিবারের পূর্ব বিরোধ চলে আসছে।

এরই জের ধরে আজ সকালে প্রতিপক্ষের লোকজন তার চাচাতো ভাই মেম্বার শাস্তু মিয়াকে রাস্তায় একা পেয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালায়।

তারা শাস্তু মিয়াকে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে ফেলে। এ সময় তার সাথে থাকা ছালেক মিয়ার পিতা এগিয়ে আসলে তার উপরও হামলা চালায় প্রতিপক্ষের লোকজন।

এ দিকে ইউপি সদস্য শাস্তু মিয়াকে হত্যার উদ্দেশ্যে পরিকল্পিত ভাবে হামলার ঘটনায় রিচি ইউনিয়নের মেম্বার সদস্য জেলা চেয়ারম্যান ও মেম্বার এসোসিয়েশনের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন।

By udaytv

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!