1. udaytv3420@gmail.com : editor :
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১২:০৪ পূর্বাহ্ন

পায়রা সমুদ্রবন্দর টার্মিনাল প্রকল্প চলছে ঢিমেতালে

উদয় টিভি ডেস্ক রিপোর্ট
  • Update Time : রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৭১ Time View

গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পগুলো চলছে ঢিমেতালে। তিন বছরে সমাপ্ত করার জন্য জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) অনুমোদন দেয়; কিন্তু দুই বছর এক মাসে পায়রা বন্দরের প্রথম টার্মিনাল এবং আনুষঙ্গিক সুবিধাদি নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পে কাজের অগ্রগতি মাত্র ৮.৬৫ শতাংশ। তবে ব্যয় বৃদ্ধি থেমে নেই। ৫৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ও বৃদ্ধি পেয়েছে। পায়রা সমুদ্রবন্দরের টোটাল ওয়ার্কপ্ল্যান তৈরি করে আগামী একনেক সভায় উপস্থাপন করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন সম্প্রতি একনেক সভায়।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবনা ও আইএমইডি থেকে জানা গেছে, পায়রা বন্দরের প্রথম টার্মিনাল এবং আনুষঙ্গিক সুবিধাদি নির্মাণ শীর্ষক প্রকল্পের উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) ২০১৮ সালের ৪ নভেম্বর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় অনুমোদিত হয়। সে অনুযায়ী কলাপাড়া উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের রাবনাবাদ চ্যানেলের চাড়িপাড়ায় প্রথম টার্মিনাল এবং কনটেইনার ইয়ার্ড নির্মিত হচ্ছে। বঙ্গোপসাগরের সাথে মিলিত রাবনাবাদ চ্যানেলটি ১৪ কিলোমিটার দীর্ঘ। পায়রা বন্দরের প্রথম টার্মিনাল এবং আনুষঙ্গিক সুবিধাদি নির্মাণ প্রকল্প ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে শুরু হয়। প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয় তিন হাজার ৯৮২ কোটি ১৯ লাখ টাকা। চলতি বছরের ডিসেম্বরে প্রকল্পটি শেষ হওয়ার কথা। অর্থাৎ প্রকল্প বাস্তবায়নের মেয়াদ শেষ হওয়ার পথে বা দুই বছরের বেশি সময় পার হয়ে গেছে। অথচ প্রকল্পের অগ্রগতি মাত্র ৮.৬৫ শতাংশ। সময় পার করে চলতি ফেব্রুয়ারিতে একনেকে প্রকল্পটির ব্যয় বাড়ানোর প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়। এখন সময় দেড় বছর অর্থাৎ ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত বাড়িয়ে নতুন ব্যয় ৪ হাজার ৫১৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকা করা হয়েছে।

প্রকল্পের আওতায় কাজগুলো হলো, প্রয়োজনীয় সুবিধাদিসহ জেটি নির্মাণ-৪৬ হাজার ২০০ বর্গমিটার, ছয় (৪+২) লেন ৬.৩৫ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক নির্মাণ, আন্দারমানিক নদীর ওপর এক হাজার ১৮০ মিটার সেতু নির্মাণ, সোয়া ৩ বর্গমিটার ব্যাকআপ ইয়ার্ড নির্মাণ, সার্ভিস জেটি এক শ’ মিটার ও জেটি সংলগ্ন রাস্তা নির্মাণ, ২টি ওয়ার্ক বোট, ২টি টাগ বোট ও ইকুইপমেন্ট ক্রয়, বৈদ্যুতিক ট্রান্সমিশন লাইন নির্মাণ-৫ কিলোমিটার এবং অপটিক্যাল ফাইবার লাইন নির্মাণ-১০ কিলোমিটার ও অন্যান্য কাজ।

এ দিকে প্রকল্পের ব্যয় বৃদ্ধির ব্যাপারে সংশ্লিষ্টরা জানান, পরামর্শক কর্তৃক জেটির বিস্তারিত ডিজাইন প্রণয়নকালে জেটির পাইলগুলোর উচ্চতা বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ছাড়াও আগের ডিজাইনে ছিল আরসিসি পাইল; যা নতুন ডিজাইনে স্টিল পাইলে রূপান্তর হয়েছে। পাশাপাশি পাইলের সংখ্যা ও ব্যাস বৃদ্ধি পেয়েছে। আগের ডিজাইনে পাইলের ব্যাস ছিল এক হাজার মিলিমিটার এবং আরসিসি পাইলের সংখ্যা ছিল ৯৮১টি। নতুন ডিজাইনে তা পরিবর্তিত হয়ে ব্যাস হয়েছে এক হাজার ১১৭.৬০ মিলিমিটার এবং পাইলের সংখ্যা হয়েছে এক হাজার ৩৯১টি। যার ফলে জেটির নির্মাণ ব্যয় বৃদ্ধি পাবে ৪৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা।
তারা বলছেন, এ ছাড়াও আন্দারমানিক নদীর ওপর নির্মিতব্য সেতু ব্যবহার করে ভার বোঝাই জাহাজ চলাচল করবে বিধায় পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ব্রিজের গ্রেডিয়েন্ট স্লোপ ৪ শতাংশ নির্ধারণ করায় ব্রিজের দৈর্ঘ্য ১৩০ মিটার বৃদ্ধি পেয়েছে। মাটি পরীক্ষা করে মাটির বেয়ারিং ক্যাপাসিটি খারাপ পাওয়ায় ব্রিজের পাইপের সংখ্যা, দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ বৃদ্ধি পায়; যার ফলে সেতুর নির্মাণ ব্যয় ৪১১ কোটি ২৭ লাখ টাকা বৃদ্ধি পাবে।

বর্ধিত ব্যয় ও সময়ের ব্যাপারে একনেক সভা শেষে পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য (সচিব) মো: মামুন-আল-রশীদ বলেন, এ রকম বড় বন্দর করার মতো আমাদের নিজস্ব এক্সপার্ট (বিশেষজ্ঞ) থাকার প্রশ্নই আসে না। শুরুতে সম্ভাব্যতা যাচাই করা হয়েছিল। কিন্তু পরে বেলজিয়াম ও ডেনমার্কের দু’টি ফার্ম দিয়ে যখন প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই করা হয়, তখন তারা দেখল, ৪০ হাজার টন বহন ক্ষমতাসম্পন্ন জাহাজ যখন বন্দরে এসে ভিড়বে তাতে যে ঢেউ সৃষ্টি হবে তা আরসিসি পাইপ সহ্য করতে পারবে না। সে কারণে বলা হয়েছে, স্টিল পাইপ দিয়ে সেটা করার জন্য। এ কারণে একটা খরচ বেড়েছে।

সম্প্রতি প্রকল্পটি পরিদর্শন শেষে এক প্রতিবেদনে আইএমইডি সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী বলেন, প্রকল্পের বিভিন্ন অঙ্গের কাজ চলমান রয়েছে। জানুয়ারি পর্যন্ত আর্থিক অগ্রগতি ৮.৫৯ শতাংশ এবং বাস্তব অগ্রগতি ৮.৬৫ শতাংশ। যেহেতু প্রকল্পটি বৃহৎ আকৃতির, তাই সুনির্দিষ্ট কর্মপরিকল্পনা (সময়াবদ্ধ) প্রণয়ন এবং পর্যাপ্ত জনবল নিয়োগ করে প্রকল্পের কাজ দ্রুত এগিয়ে নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
Uday tv @ ২০২০,সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।
error: Content is protected !!

Designed by: Sylhet Host BD