১৯৯৫-এ বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন অঞ্জলি তেন্ডুলকরের সাথে। চরাই-উতরাইয়ের মধ্যে দিয়ে পেরিয়ে গেল পঁচিশটা বছর। বিবাহবার্ষিকীর সিলভার জুবিলি সেলিব্রেশনে তাই গোটা পরিবারকে নিজের হাতে বানানো এক ম্যাঙ্গো রেসিপি খাইয়ে সারপ্রাইজ দিলেন মাস্টার-ব্লাস্টার শচিন রমেশ টেন্ডুলকার।

সোমবার ২৫তম বিবাহবার্ষিকীতে বাড়িতে বসেই নিজে হাতে ম্যাঙ্গো কুলফি বানিয়ে ফেললেন তিনি। ইনস্টাগ্রামে সোমবার শচিন অনুরাগীদের সাথে শেয়ারও করে নিলেন ম্যাঙ্গো কুলফি বানানোর পদ্ধতি। ম্যাঙ্গো কুলফি বানানোর ভিডিও বানাতে গিয়ে ব্যাটিং গ্রেট এদিন বলেন, ‘আমাদের বিবাহ-বার্ষিকীর জন্য সারপ্রাইজ এটা। পরিবারের সকলকে চমকে দিতে আমাদের ২৫তম বিবাহবার্ষিকীতে তৈরি করে ফেললাম এই ম্যাঙ্গো কুলফি।’

ম্যাঙ্গো কুলফি বানানোর পদ্ধতিও মাস্টার-ব্লাস্টার বাতলে দেন তার স্বল্প সময়ের ভিডিওতে।

উল্লেখ্য, ১৯৯০ আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের একদম শুরুতে টিন-এজ টেন্ডুলকরের সাথে পরিচয় হয়েছিল অঞ্জলির। ৫ বছর বাদে ২৪ মে, ১৯৯৫ সাতপাকে বাধা পড়েন দু’জনে। সম্প্রতি ইউনিভার্সিটি কলেজ অফ লন্ডন থেকে গ্র্যাজুয়েট হয়েছে মেয়ে সারা টেন্ডুলকার। আর পুত্র অর্জুন ক্রিকেটে বাবার মতোই লক্ষ্যভেদের লক্ষ্যে এগোচ্ছেন। সবমিলিয়ে অবসরোত্তর জীবনে সারা-অর্জুনকে নিয়েই আবর্তিত শচিনের বেশিরভাগ সময়।

লকডাউনের মাঝে দিনকয়েক আগে পুত্র অর্জুনের হেয়ার স্টাইল করে ভাইরাল হয়েছিলেন মাস্টার-ব্লাস্টার। সম্প্রতি ব্যাটিং ওস্তাদ তার ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিও শেয়ার করেন, যেখানে দেখা যাচ্ছে তিনি তার ২০ বছরের ছেলে অর্জুনের চুল কেটে দিচ্ছেন। ভিডিওটি শেয়ার করে শচিন তার মেয়ে সারাকে ধন্যবাদ জানান। কারণ তার সেলুনে মেয়ে নাকি সহকারী হিসাবে কাজ করেছিলেন।

ভিডিও পোস্ট করে শচিন ক্যাপশনে লেখেন, ‘একজন বাবা হিসাবে আপনার সব কিছু করা দরকার, আপনার বাচ্চাদের সাথে গেম খেলুন, তাদের সাথে জিম করুন বা তাদের চুল কেটে দিন। যেমনই চুল কাটা হোক না কেন, সুন্দর লাগবে।’

By udaytv

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!