1. sm.khakon0@gmail.com : udaytv :
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:০৫ পূর্বাহ্ন

চাঁদপুরে করোনার উপসর্গে গার্মেন্টসকর্মী, ব্যবসায়ী ও পল্লী চিকিৎসকের মৃত্যু

Reporter Name
  • সোমবার, ১ জুন, ২০২০
  • ২৩৫ বার পড়া হয়েছে
মহামারী করোনাভাইরাসে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে তিন লাখ ৬৪ হাজার ৭১৪ জন। মারা গেছে এক হাজার ২৭ জন। গতকাল রোববার আক্রান্ত হয়েছিল দুই লাখ ৮৫ হাজার ১৭১ জন। আর মারা গিয়েছিল ৯১৫ জন মানুষ। ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুসারে, সোমবার বেলা ১২টা পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৬ কোটি ২১ লাখ ৫৫ হাজার ৯৭০ জনে। মোট মৃতের সংখ্যা ৬৬ লাখ ৮৭ হাজার ২৩৪ জনে পৌঁছেছে। আর সুস্থ হয়েছে ৬৩ কোটি ৪৯ লাখ ২০ হাজার ৭৭৩ জন। এ পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ কোটি ২২ লাখ ৪৭ হাজার ৫৭৫ জনে। মোট মারা গেছে ১১ লাখ ১৬ হাজার ৯৫ জন। তালিকায় আক্রান্তে দ্বিতীয় ও মৃত্যুতে তৃতীয় অবস্থানে আছে ভারত। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন চার কোটি ৪৬ লাখ ৭৮ হাজার ৫৪৮ জন। মৃত্যু হয়েছে পাঁচ লাখ ৩০ হাজার ৬৯৬ জনের। আক্রান্তে তৃতীয় ও মৃত্যুতে চতুর্থ স্থানে আছে ফ্রান্স। মোট আক্রান্ত হয়েছে তিন কোটি ৯১ লাখ ৫৯ হাজার ৭৫৭ জন। আর মারা গেছে এক লাখ ৬১ হাজার ১৫২ জন। এরপর আক্রান্তে চতুর্থ ও মৃত্যুতে পঞ্চম স্থানে আছে জার্মানি। আক্রান্ত হয়েছেন মোট তিন কোটি ৭২ লাখ ১১ হাজার ৯৩৭ জন। আর মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ৬০ হাজার ৭৬৮ জনের। তালিকায় আক্রান্তে পঞ্চম ও মৃত্যুতে দ্বিতীয় ব্রাজিল। আক্রান্ত হয়েছে তিন কোটি ৬২ লাখ দুই হাজার ১৮৭ জন। মারা গেছে ছয় লাখ ৯৩ হাজার ১৭ জন।

চাঁদপুর প্রতিনিধি: চাঁদপুরে করোনার উপসর্গে আরো ৩জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে মতলব দক্ষিণে নারায়ণগঞ্জ ফেরত এক গার্মেন্টসকর্মী ও এক ব্যবসায়ী এবং এক পল্লী চিকিৎসক রয়েছেন।

বাবুরহাট বাজারের প্রসিদ্ধ পল্লী চিকিৎসক আশুতোষ আচার্যী সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে নিজ বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, তিনি দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগেও ভুগছিলেন। গত কয়েক দিন ধরে তিনি জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন। নমুনা পরীক্ষার পর রিপোর্ট আসে করোনা নেগেটিভ। মৃত্যুর সময়ও তার উপসর্গ ছিল। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জানান, পূর্বে নমুনা পরীক্ষা করায় তার আর নমুনা সংগ্রহ করা হবে না।

এদিকে মতলব দক্ষিণ উপজেলার খাদেরগাঁও ইউনিয়নের ঘিলাতলী গ্রামের মনি বেগম (৩৫) রোববার দিবাগত রাতে করোনার উপসর্গ নিয়ে নিজ বাড়িতে মারা যান। এরপর রাত ২টায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে তার লাশ দাফন করা হয়েছে। দাফনের সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন থানার ওসিসহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার।

মনি বেগম নারায়ণগঞ্জে পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। দুইদিন আগে তিনি এলাকায় আসেন। মৃত্যুর পর তার ও পরিবারের অন্যদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

অন্যদিকে, মতলব দক্ষিণ উপজেলার নায়েরগাঁও ইউনিয়নের পাচন গ্রামের (নায়েরগাঁও বাজার সংলগ্ন) ব্যবসায়ী পরিমল বিশ্বাস (৬৫) সোমবার সকাল ৭টার দিকে (৬৫)  সদরের বাবুরহাট এলাকায় তার ভায়রার বাড়িতে জ্বর ও শ্বাসকষ্টে মারাা যান। সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সাজেদা বেগম পলিন জানান, করোনার উপসর্গ থাকায় তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তাকে বিশেষ ব্যবস্থায় দাহ করা হবে।

প্রয়াতের ভাগ্নে পলাশ কুমার দে জানান, ঢাকার কালিগঞ্জে মিষ্টির দোকান ছিল পরিমল বিশ্বাসের। প্রায় ৬ মাস ধরে তিনি এলাকায় অবস্থান করছিলেন। এর মধ্যে মেয়ের সন্তান প্রসব উপলক্ষে সম্প্রতি তিনি মেয়ের সাথে প্রাইভেট হাসপাতালে আসা-যাওয়া করেন। এরপর জ্বরে ভুগছিলেন তিনি। পলাশ দের অসুস্থতার খবর শুনে তাদের বাড়িতে এসেছিলেন তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
Uday tv @ ২০২০,সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।
error: Content is protected !!

Designed by: Sylhet Host BD